থাইল্যান্ডের ট্রাট প্রদেশের গভর্নরের সাথে মান্যবর রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

ব্যাংকক,  ৮ জুন ২০২২

আজ থাইল্যান্ডে নিযুক্ত বাংলাদেশের মান্যবর রাষ্ট্রদূত জনাব মোঃ আবদুল হাই  ট্রাট প্রদেশের গভর্নর  Mr. Chamnanwit Terat এর সাথে তাঁর কার্যালয়ে সাক্ষাৎ করেন।

গভর্ণর Mr. Terat তাঁর কার্যালয়ে রাষ্ট্রদূতকে সাদর অভ্যর্থনা জানান। তাঁরা বাংলাদেশ ও থাইল্যান্ডের মধ্যকার সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্কের কথা তুলে ধরেন।  গভর্নর তাঁর প্রদেশ সম্পর্কে রাষ্ট্রদূতকে অবহিত করেন। ট্রাট প্রদেশ কম্বোডিয়ার কাছে থাইল্যান্ডের একটি সীমান্তবর্তী প্রদেশ। এ প্রদেশ কম্বোডিয়ার সাথে থাইল্যান্ডের সীমান্তবর্তী বাণিজ্য সম্প্রসারণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। ট্রাট প্রদেশের হাট লেক সীমান্ত ইমিগ্রেশন পয়েন্ট হতে মালামাল রপ্তানি করা হয়। এ সীমান্ত পয়েন্ট হতে থাইল্যান্ড মূলত ফল রপ্তানি করে থাকে যা ভিয়েতনাম পর্যন্ত যায়।

ব্যবসায়িক কাজে থাইল্যান্ডের ব্যবসায়ীগণ ট্রাট প্রদেশের সীমান্ত বর্ডার দিয়ে কম্বোডিয়ার সীমান্তবর্তী অঞ্চলে ৭-১০ দিন পর্যন্ত বর্ডার পাস পেয়ে থাকেন।  একই প্রক্রিয়ায় কম্বোডিয়ার ব্যবসায়ীগণ ট্রাট প্রদেশে ব্যবসার জন্য ৭-১০ দিন পর্যন্ত বর্ডার পাস পেয়ে থাকেন।  এই প্রক্রিয়ায় উভয় দেশের ব্যবসায়ী সম্প্রদায় ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণে সুযোগ পাচ্ছে। সীমান্তবর্তী অঞ্চলের ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণের এ উদ্যোগ বাংলাদেশের জন্যও অনুসরণীয় হতে পারে।

বৈঠক শেষে মান্যবর রাষ্ট্রদূত হাট লেক সীমান্ত ইমিগ্রেশন পয়েন্ট পরিদর্শন করেন। এ সময় ট্রাট গভর্নর অফিসের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। তাঁরা এ পয়েন্ট হতে সীমান্ত বাণিজ্য সরেজমিনে পরিদর্শন করেন। 

       দূতাবাসের মিনিস্টার (কন্স্যুলার) জনাব আহমেদ তারিক সুমীন এবং কাউন্সেলর ও দূতালয় প্রধান জনাব মোঃ মাসূমুর রহমান রাষ্ট্রদূতের সাথে উপস্থিত ছিলেন।