বাংলাদেশ দূতাবাস, ব্যাংককে বাংলা নববর্ষ ১৪২৯ উদযাপন

ব্যাংকক,  ১৪ এপ্রিল ২০২২

উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ দূতাবাস, ব্যাংকক দূতাবাস প্রাঙ্গণে বাংলা নববর্ষ ১৪২৯ উদযাপন করে। কোভিড অতিমারীর কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এ সীমিত পরিসরে এ আয়োজন করা হয়।

       অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলা নববর্ষ-১৪২৯ উপলক্ষ্যে মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত বাণী পাঠ করেন যথাক্রমে দূতাবাসের মিনিস্টার (কনস্যুলার) জনাব আহমদ তারেক সুমীন ও মিনিস্টার (ইকনোমিক) জনাব সৈয়দ রাশেদুল হোসেন। অনুষ্ঠানে মঙ্গল শোভাযাত্রার ওপর নির্মিত একটি বিশেষ প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

 শুভেচ্ছা বক্তব্যে মান্যবর রাষ্ট্রদূত জনাব মোঃ আব্দুল হাই উপস্থিত সকলকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানান। তিনি বলেন, জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সবার অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে বাংলা নববর্ষ কালক্রমে বাঙালি  সংস্কৃতির সার্বজনীন উৎসবে পরিণত হয়েছে। তিনি তাঁর বক্তব্যে ইউনেস্কো-এর অপরিমেয়  সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য (Intangible cultural heritage) হিসেবে মঙ্গল শোভাযাত্রা এর অন্তর্ভূক্তির কথা উল্লেখ করে নববর্ষ উদযাপনের আন্তর্জাতিক করণের কথা তুলে ধরেন।  বাংলা নববর্ষ উদযাপন আমাদের সংবিধান হতে উৎসারিত। বাংলা নববর্ষ উদযাপনের প্রাতিষ্ঠানিকীকরণের ক্ষেত্রে তিনি বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবদানের কথা তুলে ধরেন। রাষ্ট্রদূত আরো বলেন,  সার্বজনীন এ উৎসবে মঙ্গল শোভাযাত্রা আশির দশকের শেষাংশে শুরু হলেও এর উপাদান সমূহ প্রাচীন।  মঙ্গল শোভাযাত্রার মাধ্যমে তা এক নতুন মাত্রা পেয়েছে এবং এ উৎসবের আন্তর্জাতিকীকরণ হয়েছে।

 ‘এসো হে বৈশাখ এসো এসো‘ গানটি প্রদর্শনের মধ্য দিয়ে পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।