ব্যাংককে বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক অভিবাসন দিবস পালিত

১৮ ডিসেম্বর ২০২০, শুক্রবার সকাল ১০ টায় ব্যাংককস্থ জাতিসংঘ সম্মেলন কেন্দ্রে এসকাপ, আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা এবং এশিয়া প্যাসিফিক জাতিসংঘ অভিবাসন নেটওয়ার্কের সাথে যৌথভাবে যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক অভিবাসন দিবস পালন করে। এই প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার পাশাপাশি এসকাপ এবং এশিয়া প্যাসিফিক অভিবাসন নেটওয়ার্ক আন্তর্জাতিক অভিবাসন দিবস পালনে বাংলাদেশ দূতাবাসের সাথে যুক্তহলো।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেন ব্যাংককস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের চার্জ-দ্য-এফেয়ার্স শাহনাজ গাজী। অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন এসকাপের এক্সিকিউটিভসেক্রেটারি আরমিডা সালসিয়াহ আলিসজাবানা এবং থাই পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপ-মহাপরিচালক রঙউট উইরাবুট। আন্তর্জাতিক অভিবাসন দিবসের অনুষ্ঠানে বিভিন্ন রাষ্ট্র ওআন্তর্জাতিক সংস্থার প্রতিনিধিবৃন্দ ও রাষ্ট্রদূতসহ অন্যান্য কূটনীতিকবৃন্দ সভায় উপস্থিত থেকে এবং অনলাইনে যুক্ত হন।   

অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্যে বাংলাদেশ দূতাবাসের চার্জ-দ্য-এফেয়ার্স শাহনাজ গাজী মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে গ্লোবাল কমপ্যাক্ট ফর মাইগ্রেশনের আন্তর্জাতিকভাবে গৃহীত হওয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকারের সক্রিয় ভূমিকার কথা স্মরণ করেন এবং এর বাস্তবায়নের জন্য বাংলাদেশের দৃঢ় সমর্থন পুনঃব্যক্ত করেন। তিনি বর্তমান কোভিড ১৯ বৈশ্বিক মহামারীর প্রেক্ষাপটে অভিবাসীদের নিরাপত্তার জন্য বাংলাদেশ সরকারের গৃহীত পদক্ষেপসমূহ তুলে ধরেন। তিনি মুজিববর্ষে বাংলাদেশ সরকারের স্লোগান “মুজিববর্ষের আহ্বান, দক্ষ হয়ে বিদেশ যান” আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে তুলে ধরেন। আন্তর্জাতিক অভিবাসন দিবসে এসকাপের এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি আরমিডা সালসিয়াহ আলিসজাবানা এবং জাতিসংঘ আঞ্চলিক অভিবাস নেটওয়ার্কের সমন্বয়ক নেনেট মটুস যৌথভাবে এশিয়া-প্যাসিফিক অভিবাসন প্রতিবেদন ২০২০ প্রকাশ করেন। অতঃপর এশিয়া-প্যাসিফিক অভিবাসন প্রতিবেদন ২০২০ এর উপর একটি প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। পরবর্তীতে নেনেট মটুসের সঞ্চালনায় গ্লোবাল কমপ্যাক্ট ফর মাইগ্রেশনের উপর আরেকটি প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। প্যানেল আলোচনা শেষে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের সদস্য কামাল উদ্দিন আহমেদ সমাপনী বক্তব্য প্রদান করেন।